একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা: রাজা সীতারাম রায়ের প্রাসাদ, মোহাম্মদপুর (২য় পর্ব)

স্থাপত্য ও নির্মাণ
পরিবেশ ও পরিকল্পনা
২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
৮৬
একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা: রাজা সীতারাম রায়ের প্রাসাদ, মোহাম্মদপুর (২য় পর্ব)

 প্রকল্প তথ্য 'নগর উন্নয়ন অধিদপ্তর' হতে প্রাপ্ত 

সাইটের স্থান-সংক্রান্ত বিশ্লেষণ:

গুগল থেকে সাম্প্রতিক স্যাটেলাইট ছবি ডাউনলোড করা হয়েছে এবং সাইটের স্থান-সংক্রান্ত বিশ্লেষণের জন্য ব্যবহার করা হয়েছে। স্থানিক বিশ্লেষণ থেকে দেখা যায় যে পরিখা সহ মোট দুর্গের আয়তন প্রায় ৬০ একর। দুর্গ এলাকায় ০৫টি ঐতিহ্যবাহী পুকুর রয়েছে, যার আয়তন প্রায় ৪.৬৫ একর। ঐতিহ্যবাহী কাঠামোর সংখ্যা ০৬টি, যার আনুমানিক আয়তন ০.২৪ একর। দুর্গ এলাকার ভেতরে ঐতিহ্যবাহী স্থান ০২টি, যার আয়তন ১.৩ একর। পরিখার মোট এলাকার আয়তন ১৫.৫ একর।

Trench Condition

ছবি: রাজা সীতারাম রায়ের প্রাসাদের পরিখার বর্তমান অবস্থা

ছবি উৎস: নগর উন্নয়ন অধিদপ্তর

পরিখা সনাক্তকরণ:

পরিখাটি আয়তাকার আকৃতির এবং এর প্রস্থ সব দিকে সমান নয় কারণ কিছু এলাকা ভরাট হয়ে গেছে, কিছু এলাকা খাদে রূপান্তরিত হয়েছে। কিন্তু সার্বিকভাবে পরিখার জায়গাটি স্যাটেলাইট ইমেজ হতে দেখা যায়। স্যাটেলাইট ইমেজটি ক্রমাগত মাঠ পরিদর্শনের মাধ্যমে যাচাই করা হয়েছে। অতীতে, পরিখা এলাকা ছিল একটি খাল যা সমস্ত প্রাসাদকে ঢেকে রাখত। পুকুরের একটি লম্বা সারি এখনও পরিখা এলাকায় দেখা যায়। কিছু পুকুর ভরাট করে আবাসিক ভবন নির্মাণ করা হয়েছে, কিছু এলাকা সরু খাদে রূপান্তরিত হয়েছে এবং কিছু এলাকা সম্পূর্ণরূপে কৃষি জমি হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

Waterbodies

ছবি: রাজা সীতারাম রায়ের প্রাসাদের জলাশয়গুলোর বর্তমান অবস্থা

ছবি উৎস: নগর উন্নয়ন অধিদপ্তর

জলাশয়:

সাইটের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয়গুলি হল - স্কেচে চিহ্নিত দুটি ঐতিহ্যবাহী পুকুর সহ ভেতরের দিকে এবং সংলগ্ন এলাকায় অনেক জলাশয় ভরাট করা হয়েছে। প্রভাবশালীরা ভরাট করে পুকুর ভরাট করে এবং দখল করে আবাসিক প্লটে ভাগ করেছে।

সেটেলমেন্ট এবং কাঠামো:

প্রাসাদ এলাকাটিকে একটি নির্মিত/নির্মাণাধীন এলাকায় রূপান্তরিত করা হয়েছে যেখানে আবাসিক ভবনের সংখ্যা অধিক। কিছু সরকারি অফিসের পাশাপাশি বাণিজ্যিক ও শিক্ষা ভবনও এলাকার পাশে চিহ্নিত করা হয়েছে। উত্তর ও পশ্চিম দিক প্রধানত কৃষিকাজের জন্য ব্যবহৃত হয়। সাইট এলাকায় তিন ধরনের কাঠামো চিহ্নিত করা হয়েছে - কাচা, আধাপাকা এবং পাক্কা। পাকা কাঠামোর অধিকাংশই দোতলা এবং আবাসিক কাজে ব্যবহৃত হয়।

রাস্তা নেটওয়ার্ক:

তিন ধরনের সড়ক চিহ্নিত করা হয়েছে - পাক্কা, ইটভাটা (এইচবিবি) ও কাঁচা। প্রধান এবং গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার সর্বাধিক প্রস্থ ২১ ফুট।

Proposed Blocks

ছবি: রাজা সীতারাম রায়ের প্রাসাদের সেটেলমেন্ট (settlement) প্যাটার্ন

ছবি উৎস: নগর উন্নয়ন অধিদপ্তর

পরিকল্পনা বিবেচনা:

প্রস্তাবিত পরিকল্পনার ব্লকসমূহ:

পরিকল্পনা বিবেচনার জন্য মোট এলাকাকে ২টি প্রস্তাবিত ব্লকে ভাগ করা হয়েছে –

ব্লক A: (কাচারিবাড়ি, পদ্মপুকুর ও দোলমঞ্চ এলাকা): প্রস্তাবটি হল এলাকাটিকে একটি পাবলিক স্পেস হিসেবে ডিজাইন করা, যেখানে পুকুরের চার পাশে ০৪টি সিঁড়িসহ "পদ্মপুকুর" এর চারপাশে বৃত্তাকার হাঁটার পথ ডিজাইন করা হয়েছে। বসার বেঞ্চ, পুকুরের চারপাশে গাছপালা লাগানোরও প্রস্তাব করা হয়েছে। কিছু জল-ভিত্তিক বিনোদন সুবিধা (যেমন প্যাডেল বোট, কায়াক ইত্যাদি) প্রস্তাব করা হয়েছে। দোলমঞ্চ এবং এর কোর্ট ইয়ার্ড এলাকাটি হিন্দু তীর্থযাত্রীদের দ্বারা ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে।

ব্লক B: (অন্যান্য পুকুর এবং ঐতিহ্যবাহী এলাকা): দ্বিতীয় নকশা ব্লকটি অন্যান্য সমস্ত ঐতিহ্যবাহী কাঠামো, মন্দির, পুকুর এবং ঐতিহ্যবাহী স্থানকে কভার করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে এবং এটি একটি পর্যটন স্পট হিসাবে প্রস্তাবিত হয়েছে। সবগুলো সাইটকে সংযুক্ত করার জন্য একটানা হাঁটার পথ-এর প্রস্তাব করা হয়েছে।

রাজা সীতারাম-এর প্রাসাদ এলাকার প্রস্তাবিত নকশা:

পুরো স্থানটি পুনরুদ্ধার করার জন্য প্রাসাদ এলাকার একটি বিস্তারিত নকশা প্রস্তাব করা হয়েছে। ডিজাইনের মূল ফোকাস-সাইটটিকে একটি পর্যটক আকর্ষণের পাশাপাশি স্থানীয়দের জন্য একটি সর্বজনীন স্থান হিসেবে গড়ে তোলা। নকশায়ও প্রাসাদের মূল নকশা পুনরুদ্ধারের চেষ্টা করা হয়েছে।

 

Masterplan

ছবি: মাস্টারপ্ল্যান

ছবি উৎস: নগর উন্নয়ন অধিদপ্তর

 

প্রস্তাবিত পরিখা:

নতুন প্রস্তাবিত ৮০ ফুটের পরিখাটি পূর্ববর্তী স্থানে পুনরায় খনন করতে হবে। স্থানিক বিশ্লেষণ থেকে এটি পাওয়া যায় যে পরিখাটি আয়তক্ষেত্রাকার ছিল, প্রস্তাবিত নকশায়ও পরিখাটিকে আয়তক্ষেত্রাকার রাখার সুপারিশ করা হয়।

প্রস্তাবিত সড়ক নেটওয়ার্ক:স্থানটির মূল সড়কের প্রস্থ বর্তমানে ২১ ফুট। নকশায় ২১’, ১৬’ ও ১০’ প্রস্থের তিন ধরনের সড়কের প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রস্তাবিত হাঁটার পথ:

একটি আয়তাকার আকৃতির একটানা হাঁটার পথের উভয় পাশে পরিখা প্রস্তাব করা হয়েছে। হাঁটার পথের প্রস্তাবিত প্রস্থ ৫ফুট।

প্রস্তাবিত জলাশয়:

সমস্ত ঐতিহ্যবাহী পুকুর সংরক্ষণ করার এবং বিভিন্ন কাজে ব্যবহারের প্রস্তাব করা হয়েছে। পদ্মপুকুরকে বিনোদনের জন্য ব্যবহার করা উচিত এবং সাধুপুকুরকে লিলি পুকুর হিসেবে এবং মাছ ধরার পুকুর হিসেবে ব্যবহার করা উচিত। এই সমস্ত জলাশয়গুলিকে অবিচ্ছিন্ন হাঁটার পথ দিয়ে সংযুক্ত করতে হবে।

ঐতিহ্যবাহী কাঠামোর জন্য প্রস্তাব:

সকল ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা সংরক্ষণ করতে হবে। কাচারিবাড়িকে পর্যটকদের জন্য আবাসিক হোটেল হিসেবে ব্যবহার করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। ঐতিহ্যবাহী মন্দিরটি হিন্দু তীর্থযাত্রীদের জন্য সংরক্ষণ করা যেতে পারে।

প্রস্তাবিত নির্মিত ফর্ম:

সরকারি অফিস, আবাসিক হোটেল, ফুড কোর্ট ইত্যাদির নকশায় বেশ কিছু নির্মিত কাঠামোর প্রস্তাব করা হয়েছে। নকশায় দুটি প্যাভিলিয়ন এবং একটি জাদুঘরও প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রস্তাবিত সুযোগ-সুবিধা:

বেশ কিছু সুবিধা, যেমন - পিকনিক স্পট, হাট/মেলার জায়গা, খেলার মাঠ, ওয়াটার রাইডের প্রস্তাব করা হয়েছে।


সহকারী সম্পাদনায়: স্থপতি ফাইজা ফাইরুজ

 

আপনার মতামত দিন

কমেন্ট

User Image

স্থপতি নিশি সাইমুন

৭ মার্চ, ২০২৪

খুব সুন্দর একটা ঐতিহাসিক নিদর্শন, যা ধীরে ধীরে ধংশ হয়ে যাচ্ছিল সঠিক রক্ষণাবেক্ষণ- র অভাবে। ঐতিহাসিক নিদর্শনগুলো সংরক্ষণের জন্য নগর উন্নয়ন অধিদপ্তরকে ধন্যবাদ।

Logo
Logo
© 2024 Copyrights by Sthapattya o Nirman. All Rights Reserved. Developed by Deshi Inc.